বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ০৯:১০ পূর্বাহ্ন

বিএনপিকে রক্ষা করতে আ’লীগ নেতা ফারুকের যে আহ্বান

বিএনপিকে রক্ষা করতে আ’লীগ নেতা ফারুকের যে আহ্বান

বিএনপিকে রক্ষা করতে আ’লীগ নেতা ফারুকের যে আহ্বান

গণতান্ত্রিক স্বার্থে ও দলকে রক্ষার স্বার্থে বিএনপির নির্বাচিতদের সংসদে আসার আহ্বান জানিয়েছেন সাবেক মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ নেতা কর্ণেল (অব.) ফারুক খান।

বৃহস্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) একাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণ সম্পর্কে আনীত ধন্যবাদ প্রস্তাবের উপর আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ আহ্বান জানান।

ফারুক খান বলেন, বিএনপি সংসদে না আসার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, বাংলাদেশের গণতন্ত্রের স্বার্থে সেই সিদ্ধান্ত থেকে তারা বেরিয়ে আসবে বলে আমরা আশা করি। তারা সংসদে এসে তাদের যা বলার আছে, গণতন্ত্র সুসংহত করার জন্য, দলকে সুসংহত করার জন্য তাদের কিছু বলার থাকলে তারা তা বলবেন।

তিনি বলেন, রাষ্ট্রপতির ভাষণের উপর বিএনপি দীর্ঘ সময় বক্তব্য রেখে তাদের কোন সমস্যা থাকলে দেশ-জাতি ও বিশ্বের কাছে তুলে ধরতে পারত। আমি আশা করি গণতান্ত্রিক স্বার্থে ও দলকে রক্ষার স্বার্থে সংসদে আসবে।

নির্বাচনে বিএনপি আলৌকিক শক্তির উপর ভরসা করেছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, সংলাপের মাধ্যমে একটি সুষ্ঠু-শান্তিপূর্ণ নির্বাচনে সব দল অংশ নিয়েছে। নির্বাচনে আসার পর বিএনপি এক অলৌকিক শক্তির উপর ভরসা করেছিল। তারা ভেবেছিল সেই শক্তির মাধ্যমে তারা গত নির্বাচনে বিজয়ী হবে। ভোটের মাঠে বিএনপির নেতাকর্মীদের আমরা মাঠে কাজ করতে দেখিনি। বিএনপির নেতাকর্মীরা আসলে বিএনপির রাজনীতির উপর আস্থা হারিয়েছে। অতীতে তারা দেখেছে বিএনপি কখনও নির্বাচন নিয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারে না। বিএনপি যে কখন কোন নির্বাচনে যাবে, সেই নির্বাচনে থেকে কখন সরে যাবে সেটি নিয়েই নেতাকর্মীরা আস্থাহীনতায় ভুগেছে। বিএনপির প্রার্থীরাও তাদের নির্বাচনী এলাকায় যাননি। জামায়াতের নেতাদের ধানের শীষ প্রতীক দেয়ায় তরুণ প্রজন্মের আস্থা তারা সম্পূর্ণরূপে হারিয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

রোঙ্গিার সমস্যা দূর করতে হবে উল্লেখ করে ফারুক খান বলেন, মধ্যপ্রাচ্য থেকে শরণার্থীরাযখন ইউরোপের দিকে এসেছে তাদের গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। সে সকল রাষ্ট্রনায়কেরা অন্য দেশের মানুষের কথা ভেবে একটুও মানবিক হয়নি। ঠিক একই সময়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মিয়ানমার থেকে আসা ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে জায়গা দিয়েছেন। সারাবিশ্ব তাকে মানবতার মা, মাদার অব হিউম্যানিটিসহ বিভিন্ন প্রশংসামূলক পদবী দিয়েছে। কিন্তু আমি বিশ্বাস করি প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে এই রোঙ্গিার সমস্যা দূর করতে হবে। তিনি জাতিসংঘে যে ফর্মূলা দিয়েছেন, তার মাধ্যমে এই সমস্যা সমাধান সম্ভব হবে।

তিনি আরও বলেন, কোন কোন সুশীল সমাজের লোকেরা বাংলাদেশের উন্নতি অগ্রগতি নিয়ে নেতিবাচক কথা বলে থাকেন। আমি তাদেও অনুরোধ করব কোন মন্তব্য করার আগে মহামান্য রাষ্ট্রপতির ভাষনটি পড়তে এবং তা বিশ্লেষণ করতে। তাহলে তারা বাস্তবিকভাবে বুঝতে পারবে বিগত ১০ বছরে দেশের কি পরিমাণ উন্নতি হয়েছে। এ

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 BangaliTimes.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com