বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ০১:০১ অপরাহ্ন

ধর্ষনের পর ভিডিও করে আবারও ধর্ষনঃ রাজধানী

ধর্ষনের পর ভিডিও করে আবারও ধর্ষনঃ রাজধানী

ধর্ষনের পর ভিডিও করে আবারও ধর্ষনঃ রাজধানী

কোচিং সেন্টারে পরিচয়। এরপর প্রেম। দীর্ঘ সাত মাস ধরে তাদের মধ্যে চলতে থাকে প্রেমের সম্পর্ক। একদিন প্রেমিকাকে নিজের বাসায় ডেকে নিয়ে যায় এবং খালি বাসায় ধর্ষণ করে। ঘটনাটি এখানেই শেষ হয়ে যেতে পারতো। কিন্তু কৌশলে ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে চলতে থাকে একাধিকবার ধর্ষণ।

এমনই ঘটনা ঘটেছে রাজধানীর ওয়ারীতে। এ ঘটনায় সেই প্রতারক প্রেমিক আল্লাম হোসেনকে (২২) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ধর্ষণের শিকার তরুণীর (১৮) মামলা দায়েরের পর গতকাল বুধবার (৬ ফেব্রুয়ারি) রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত প্রেমিক উত্তরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসই তৃতীয় বর্ষের ছাত্র। আজ বৃহস্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

ধর্ষণের অভিযোগ করা তরুণী গত বছর এসএসসি পাস করে রাজধানীর একটি পলিটেকনিক কলেজে পড়ছেন।

মামলার তথ্য থেকে জানা গেছে, ওয়ারীর গোলাপবাগের একটি কোচিং সেন্টারে এক তরুণীর সঙ্গে আল্লাম হোসেনের পরিচয় হয়। এরপর তাদের মধ্যে প্রেম হয়। সাত মাস ধরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। গত ২৫ জানুয়ারি আল্লাম হোসেন ওই তরুণীকে নিজের বাসায় ডেকে নিয়ে যায় এবং খালি বাসায় তাকে ধর্ষণ করে। পরের দিন মেয়েটিকে ফোন দিয়ে জানানো হয়, তার (তরুণীর) ছবি ও ভিডিও রেকর্ড করে রাখা হয়েছে। সেগুলো ইউটিউব, ফেসবুকে ছেড়ে দেওয়ার ভয় দেখানো হয়। এভাবে ব্ল্যাকমেইল করে ২৬ জানুয়ারি তরুণীকে ফের বাসায় নিয়ে ধর্ষণ করে আল্লাম হোসেন। সর্বশেষ গত ৩ ফেব্রুয়ারিও একইভাবে ওই তরুণীকে বাসায় যেতে বাধ্য করে আল্লাম।

আরো জানা গেছে, একপর্যায়ে মেয়েটি তার অভিভাবকদের ব্ল্যাকমেইলের বিষয়টি জানান। মেয়েটির মা পুরো ঘটনাটি ছেলের পরিবারকে জানালে তারা বিষয়টি চেপে যেতে তরুণীর পরিবারকে চাপ দেয়। এরপর মেয়েটি একাধিকবার আত্মহত্যার চেষ্টা করে বলেও জানান তার এক স্বজন।

বুধবার (৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে মেয়েটি প্রতিবেশী একজনের বাসায় গিয়ে পুরো ঘটনা খুলে বলেন। এরপর ওই প্রতিবেশী তাকে ওয়ারী থানায় নিয়ে যান। এ মামলায় বুধবার বিকালেই ওয়ারী থানা পুলিশ আল্লামকে তার টিকাটুলির বাসা থেকে গ্রেফতার করে। এরপর তরুণীর মা বাদী হয়ে ওয়ারী থানায় ধর্ষণের অভিযোগে আল্লামের বিরুদ্ধে মামলা করেন। এদিকে তরুণীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ওয়ারী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, আমরা আসামিকে গ্রেফতার করেছি। তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। আল্লামকে জিজ্ঞাসাবাদ ও ভিডিও উদ্ধারের জন্য আদালতে রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে। রিমান্ড পেলে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 BangaliTimes.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com