বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯, ০৬:০৬ অপরাহ্ন

পাকিস্তান দলে ডাক পাওয়া প্রথম বাঙালি ক্রিকেটার আর নেই

পাকিস্তান দলে ডাক পাওয়া প্রথম বাঙালি ক্রিকেটার আর নেই

পাকিস্তান দলে ডাক পাওয়া প্রথম বাঙালি ক্রিকেটার আর নেই

না ফেরার দেশে পাড়ি জমালেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের কারিগর সৈয়দ আলতাফ হোসেন। মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর একটি হাসপাতালে মারা যান তিনি (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮১ বছর।

আলতাফ হোসেন ১৯৩৮ সালে পশ্চিমবঙ্গের হুগলি জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৪৭ সালে দেশভাগের পর তার পুরো পরিবার চলে আসে পূর্ববঙ্গে। তিনি ছিলেন তৎকালীন পাকিস্তান ক্রিকেট দলের টেস্ট স্কোয়াডে ডাক পাওয়া প্রথম বাঙালি ক্রিকেটার। বাংলাদেশে ক্রিকেট চালুর প্রবাদপুরুষ। অজস্র ক্রিকেটারের গুরু। তার হাত ধরেই এদেশে খেলাটির গোড়াপত্তন হয়। এই মহীরূহর প্রয়াণে শোকাহত ক্রিকেটাঙ্গন। ক্রিকেটের স্বপ্নসারথির মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

১৯৬৫ সালে পাকিস্তান ক্রিকেট দলে ডাক পান আলতাফ। সেই দলটির অধিনায়ক ছিলেন কিংবদন্তি হানিফ মোহাম্মদ। পূর্ব পাকিস্তানের প্রতি চরম বৈষম্য সত্ত্বেও তাকে উপেক্ষা করতে পারেননি নির্বাচকেরা। তার মেধা ও স্কিলে বিমুগ্ধ হন তারা। তারকাখচিত দলে সুযোগ পেলেও খেলার সৌভাগ্য হয়নি তার। অনেকে বলেন, শেষ পর্যন্ত আঞ্চলিকতা দোষে দুষ্ট হন নির্বাচকেরা।

খেলোয়াড়ি জীবনে আলতাফ ছিলেন ডানহাতি মিডিয়াম পেসার। ঘরোয়া ক্রিকেট খেলেছেন মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব, ঢাকা ওয়ান্ডারার্স, পিডব্লুডি, ইস্ট পাকিস্তান জিমখানা ও শান্তিনগরের হয়ে। পঞ্চাশ থেকে সত্তরের দশক পর্যন্ত ছিলেন পূর্ব পাকিস্তানের সুপারস্টার। ১৯৬১ থেকে ১৯৬৯ পর্যন্ত খেলেন পাকিস্তানের ঘরোয়া প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট। ইতিহাস বিজড়িত কায়েদে আজম ট্রফি ও আইয়ুব ট্রফিতে মাঠ মাতিয়েছেন। খেলোয়াড়ি ক্যারিয়ার শেষে আম্পায়ার হিসেবে নাম লেখান। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) আম্পায়ার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

পরে কোচিংয়ে চলে আসেন আলতাফ। ভারতের পাতিয়ালায় ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব স্পোর্টস থেকে কোচিং কোর্স করে আসেন তিনি। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর কোচ হিসেবে যোগ দেন জাতীয় ক্রীড়া পরিষদে। সগৌরবে ২৫ বছর দায়িত্ব পালন করেন এখানে। সেখান থেকে যুক্ত হন বাংলাদেশের ক্রিকেট নির্মাণে। তার কোচিংয়ে ১৯৮৬ সালে প্রথমবারের মতো এশিয়া কাপে অংশ নেয় টাইগাররা। শ্রীলংকায় সেইসঙ্গে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে। ১৯৯০ সালে ভারতে অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপেও তার অধীনে অংশ নেন তারা।

বাংলাদেশে নারী ক্রিকেটের পত্তনও হয় আলতাফের হাত ধরে। ১৯৯৭ সালেই বিসিবি তারই হাতে তুলে দেন নারী ক্রিকেট দল গড়ে তোলার দায়িত্ব। অবশেষে ১৯৯৯ সালে মেলে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি। ভূষিত হন জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কারে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 BangaliTimes.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com