বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ১০:৩৯ অপরাহ্ন

পাবলিক পরীক্ষার সময় কমছে

পাবলিক পরীক্ষার সময় কমছে

পাবলিক পরীক্ষার সময় কমছে

চলতি বছর থেকে সব পাবলিক পরীক্ষা গ্রহণের সময় কমিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রণালয়। শিক্ষার্থীদের স্বার্থে দেশের ১০টি শিক্ষা বোর্ডের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি), মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেটসহ (এইচএসসি) সমমানের সব পাবলিক পরীক্ষার সময়সূচিতে এ পরিবর্তন আনা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

শিক্ষা বোর্ডগুলোর সূত্রে জানা গেছে, জেএসসি পরীক্ষা সম্পন্ন করতে সময় লাগে ১৫ দিন। পাঁচদিন কমিয়ে এনে এবার থেকে তা ১০ দিনে সম্পন্নের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। এসএসসি পরীক্ষা সম্পন্ন করতে সময় লাগে ২৮ থেকে ৩০ দিন। এ সময় ১০ দিন কমিয়ে ২০ দিনে সম্পন্নের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

এইচএসসি পরীক্ষা শেষ করতে সময় লাগে ৪৫ দিন। এ সময় ১৫ দিন কমিয়ে ৩০ দিনে সম্পন্নের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। তবে ছুটির কারণে বা জরুরি কারণে নির্ধারিত সময় দু-একদিন বেশি লাগতে পারে।

জানতে চাইলে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক বলেন, আমরা আগামীতে কম দিনে জেএসসি, এসএসসি ও এইচএসসির পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। জেএসসি পরীক্ষা ১০ দিনে, এসএসসি ২০ দিনে এবং এইচএসসি পরীক্ষা ২৮ থেকে ৩০ দিনের মধ্যে সম্পন্ন করা হবে। আগামী পরীক্ষাগুলো থেকেই এ ব্যবস্থা কার্যকর হবে।

২০১৮ সালের জেএসসি পরীক্ষা ১ থেকে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়। ২০১৯ সালের জেএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শেষ করা হবে ১০ নভেম্বরের মধ্যে। ২০১৮ এর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা (তত্ত্বীয়) ২ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে তা সম্পন্ন হয় ২৫ ফেব্রুয়ারি। আগের বছরগুলোতে এর চেয়ে বেশি সময় লাগে। এ পরীক্ষার সময় কমিয়ে ২০ দিনের মধ্যে সম্পন্ন হবে।

এ ছাড়া গত বছর এইচএসসি পরীক্ষা ১ এপ্রিল শুরু হয়ে শেষ হয় ১১ মে। আগামীতে এ পরীক্ষা এক মাসের মধ্যেই সম্পন্ন হবে। ব্যবহারিক পরীক্ষা গ্যাপ না রেখে আগে থেকেই নেয়া হয়। এ কারণে এ পরীক্ষার সময় কমিয়ে আনার প্রয়োজন হবে না।

শিক্ষা বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, পাবলিক পরীক্ষার সময় বিভিন্ন কেন্দ্রের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ক্লাস বন্ধ থাকে। ১০ থেকে ১৫ দিন সময় কমিয়ে আনার কারণে ওই সময় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ক্লাস নেওয়া অব্যাহত রাখা হবে। এতে পরীক্ষার্থী ছাড়া অন্য শিক্ষার্থীরা উপকৃত হবে। পরীক্ষায় গ্যাপ থাকলে শিক্ষার্থীরা অন্যদের প্ররোচনায় প্রশ্ন ফাঁসের অপেক্ষায় থাকে। দ্রুততম সময়ে পরীক্ষা শেষে হলে এসব সমস্যা দেখা দেবে না। এছাড়া অভিভাবকরা কম সময়েই চাপমুক্ত হয়ে যাবেন। এসব কারণে সময় কমিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 BangaliTimes.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com