রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ০১:১০ অপরাহ্ন

ছেলে হয়েছেন মেয়ে, আর মেয়ে হয়েছেন ছেলে; আজ তাদের বিয়ে!

ছেলে হয়েছেন মেয়ে, আর মেয়ে হয়েছেন ছেলে; আজ তাদের বিয়ে!

ছেলে হয়েছেন মেয়ে, আর মেয়ে হয়েছেন ছেলে; আজ তাদের বিয়ে!

প্রেমের কাছে শরীর, বর্হিজগৎ সবই তুচ্ছ, তাই যেন সবাইকে আবার মন করিয়ে দিলেন এ রাজ্যে এই লিঙ্গান্তরিত জুটি। আর তাই তো প্রেম পেল নতুন জীবন। সোমবার ছাদনাতলায় সাত পাকে বাঁধা পড়েছেন এই প্রেমিক জুটি তিস্তা ও দীপন।

রূপান্তরিত নারী ও পুরুষের মধ্যে বিয়ের ঘটনা পশ্চিমবঙ্গে এই প্রথম। দুজনই পৃথকভাবে জন্মেছিলেন নারী ও পুরুষ হয়ে। সুশান্ত নামে জন্মেছিলেন এখনকার তিস্তা দাস। কিন্তু একসময় বুঝতে পারেন জন্মসূত্রে পাওয়া পুরুষ-শরীর তার নয়। অবশেষে বছর ১৫ আগে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে রূপান্তরিত হয়ে নারী হয়ে যান সুশান্ত। নাম রাখেন তিস্তা দাস।

কলকাতার আগরপাড়ার বাসিন্দা তিস্তার বয়স এখন চল্লিশের কাছাকাছি। ইতিমধ্যেই তিস্তা নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেছেন একজন কবি, বুটিকশিল্পী আর সমাজকর্মী হিসেবে।

অন্যদিকে, আসাম রাজ্যের লামডিংয়ের দীপন চক্রবর্তী জন্মেছিলেন নারী হয়ে। নাম ছিল দীপান্বিতা। তবে তার শরীরে ছিল পুরুষের উপসর্গ। অবশেষে বছর তিনেক আগে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে পুরুষ হয়ে যান। নাম হয়ে যায় দীপন চক্রবর্তী। তার বয়সও চল্লিশের কোঠায়।

তিস্তা ও দীপন আলাদা আলাদা জায়গায় বেড়ে উঠলেও তাদের জীবনের গল্পটা প্রায়ই একই রকম। আর এই মিলই তাদের এক করেছে।

আজ থেকে প্রায় তিন বছর আগে তিস্তার সঙ্গে বেশ নাটকীয়ভাবে পরিচয় হয় দীপনের। কলকাতার আগরপাড়ায় তিস্তা দাসের নিজের একটি লিঙ্গান্তর সংস্থা আছে। সেখানেই এক অনুষ্ঠানে দুজনের পরিচয়। বছর চল্লিশের এই দুজন জানতে পারেন যে, তারা উভয়ই লিঙ্গান্তর করেছেন।

দুজনের বয়স কাছাকাছি হলেও কেউ কাউকে নিজেদের মনের কথা বলতে পারছিলেন না। অবশেষে তিস্তার এক বান্ধবীর মাধ্যমে প্রেমের কথা জানান দীপন। তিস্তার মনেও ছিল একই অনুভূতি। সেই থেকে যুগলের প্রেম শুরু হয়। অবশেষে আজ সোমবার তাদের বিয়ে হচ্ছে।

সোমবার হিন্দুশাস্ত্রমতে তাদের বিয়ে হবে কলকাতাতে। আগামী ৭ আগস্ট হবে বউভাতের অনুষ্ঠান। দীপন কলকাতার গড়িয়ায় একটি ভাড়া বাড়িতে থাকছেন। একটি ওষুধ কোম্পানিতে কাজ করেন। বিয়েতে তার বাবা-মা আসেননি। তবে অন্য আত্মীয়স্বজনদের কেউ কেউ বিয়েতে থাকছেন।

নিজের বিয়ে নিয়ে তিস্তা বলেন, ‘দীপনকে দেখে ভেবেছি, ভালোবাসা শুধু দুটি মনের ব্যাপার।’

দীপনও বিয়ে নিয়ে বেশ খুশি। তিনি বলেন, ‘আমার কাছে পৌরুষত্ব মানে জেদাজেদি নয়, একটা মেয়েকে বোঝা, তাই এতদিন অপেক্ষা করেছি।’

২০১৪ সালে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট দেশটিতে রুপান্তরকারী মানুষদের মৌলিক অধিকারের স্বীকৃতি দেন। তবে পশ্চিমবঙ্গে রুপান্তরকারী মানুষের মধ্যে এটাই প্রথম বিয়ের ঘটনা। সম্প্রতি দেশটির কেরালা রাজ্যে এরকম একটি জুটির বিয়ে হয়।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 BangaliTimes.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com