মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৩:০০ পূর্বাহ্ন

মিশুর স্বপ্ন দীর্ঘ সময় ক্রিকেট খেলা

মিশুর স্বপ্ন দীর্ঘ সময় ক্রিকেট খেলা

মিশুর স্বপ্ন দীর্ঘ সময় ক্রিকেট খেলা

ইয়াসিন আরাফাত মিশু নোয়াখালী জেলার মাইজদীর কৃতি সন্তান। ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের (ডিপিএল) পর এবার বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগেও (বিসিএল) ঝলক দেখিয়েছেন তরুণ এই অল রাউন্ডার। সম্প্রতি বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে (বিসিএল) এক ম্যাচ খেলেই নায়ক বনে গেছেন মাইজদীর এই কৃতি সন্তান। ইস্ট জোনের বিপক্ষে দুই ইনিংসে ৭ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরা হয় নর্থ জোনের ইয়াসিন আরাফাত মিশু।

জাতীয় দলের পাইপ লাইনে তরুণ ক্রিকেটার থাকলেও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড সংকটে রয়েছে প্রতিভামান ক্রিকেটারের। সম্প্রতি জাতীয় দলের বাইরে যে কয়জন তরুণ ঝলক দেখাচ্ছেন তাদের মধ্যে অন্যতম ইয়াসিন আরাফাত মিশু। মাঠে খেলতে নেমে বল হাতে বেশি কার্যকর ভূমিকা রাখে মিশু। দলের প্রয়োজনে ব্যাট হাতেও রান তুলতে পারেন তিনি। ডিপিএল ক্রিকেটের এক ম্যাচে গাজী ক্রিকেটার্সের জার্সিতে একাই হারিয়ে দিয়েছিলেন ঢাকা আবাহনীকে। বিসিএল ক্রিকেটেও সমান আগ্রাসী তিনি। তার ভবিষ্যৎ লক্ষ্য নিয়ে কথা হয় বিডি২৪লাইভের স্টাফ করেসপন্ডেন্ট মোঃ ইমরান হোসেনের সাথে।

বিডি২৪লাইভ: প্রিমিয়ার ডিভিশনে একটা চমক ছিলো যেখানে আপনি ৭ উইকেট নিয়েছেন। তারই ধারাবাহিকতায় এখনো ভালো করছেন। যেহেতু অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে যাওয়া হয়নি। ঘরোয়াতে ভালো করতে হবে এমন কিছু মনোভাব ছিলো কি?
ইয়াসিন আরাফাত মিশু: আমি যখন বিশ্বকাপের এমন একটি মঞ্চ মিস করেছি তখন থেকেই আমার চেষ্টা ছিলো সামনে যে খেলা আসুক না কেনো আমি ভালো করব। সেই আগ্রহ থেকেই বলতে পারেন আমি প্রিমিয়ার লিগে ভালো করার চেষ্টা করেছি এবং সফল হয়েছি।

বিডি২৪লাইভ: বিসিএলে ম্যাচ খেলছেন। সর্বশেষ ম্যাচটিও ভালো করছেন। সামনে আরো একটি লংগার ভার্সন ম্যাচ আছে তার জন্য নিজেকে কিভাবে প্রস্তুত করছেন?
ইয়াসিন আরাফাত মিশু: আসলে দেখেন, প্রিমিয়ার ডিবিশনটা হচ্ছে এক ফরমেটের খেলা আর লংগার ভার্সন হচ্ছে অন্য ফরমেটের খেলা। এখানে শুধু মাত্র ফরমেট চেইঞ্জ হয় কিন্তু আমারা সবসময় চেষ্টা করি আমাদের ফিটনেসটাকে আপডেট করা।

বিডি২৪লাইভ: আপনি এখন সম্পূর্ণ তরুণ ক্রিকেটার। সেক্ষেত্রে আগে আপনার বলে কেমন গতি ছিলো। আর গতি বাড়ানোর জন্য এখন কি করছেন?
ইয়াসিন আরাফাত মিশু: সর্বশেষ যখন আমি অনূর্ধ্ব ১৯ দলে ছিলাম, তার চেয়ে এখন আমার বোলিংয়ের গতি অনেক বেড়েছে। আর ইনজুরি সময় বেশ কিছুদিন চম্পকার সাথে কাজ করেছি। তখন তিনি আমার পেস বোলিংয়ের উপর জোর দিয়েছিলো।

বিডি২৪লাইভ: আপনি এখন পর্যন্ত কার কার সাথে কাজ করেছেন?
ইয়াসিন আরাফাত মিশু: আমি সব থেকে বেশি কাজ করছি শ্রীলঙ্কান কোচ চম্পকারের সাথে। এরপর কোর্টনি ওয়ালশের সাথে কিন্তু চম্পাকা আমাকে সব থেকে বেশি সাহায্য করছে বোলিংয়ের ক্ষেত্রে। চম্পাকা আমায় বলেছেন আমার উচ্চতা বেশি তাই আমি হিটিং যদি ভালো করতে পারি তাহলে ফিডব্যাক ভালো পাবো। ঠিক এরই ধারাবাহিকতায় প্রিমিয়ার লিগে এটাই কাজে লাগানোর চেষ্টা করেছি এবং সফলতা পেয়েছি।

বিডি২৪লাইভ: জাতীয় দল নিয়ে কি ভাবছেন?
ইয়াসিন আরাফাত মিশু: আমি এখনো জতীয় দল নিয়ে ঐ রকম চিন্তা করছি না কিন্তু আমি আমার সেরাটা দিয়ে যাবো বাকিটা আল্লাহ্‌ পাকের ইচ্ছা। আমি যেখানেই খেলি না কেনো ভালো খেলার চেষ্টা থাকবে সব সময়। দ্রুত হারিয়ে না গিয়ে সর্বোচ্চ লেভেলে দীর্ঘ সময় ক্রিকেট খেলার স্বপ্ন আমার।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 BangaliTimes.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com