রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৭:৪৮ পূর্বাহ্ন

দৌলতদিয়ায় যেভাবে যৌন ব্যবসায় বাধ্য করা হয়

দৌলতদিয়ায় যেভাবে যৌন ব্যবসায় বাধ্য করা হয়

দৌলতদিয়ায় যেভাবে যৌন ব্যবসায় বাধ্য করা হয়

রাজবাড়ী জেলার দৌলতদিয়া যৌনপল্লী বাংলাদেশের একটি অন্যতম লাইসেন্সধারী যৌনপল্লী। পল্লীর আঁধারে ঘটে যাওয়া বেশিরভাগ ঘটনাই গণমাধ্যমের সামনে আসে না। তবে এবার বিবিসি’র অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে উঠে এসেছে দৌলতদিয়া যৌনপল্লীর এক নির্মম বাস্তবতা।

মাত্র সাত থেকে এগারো বছরের শিশুদেরও গড়ে তোলা হচ্ছে যৌন ব্যবসার জন্যে এমনটাই বলছে বিবিসি।

বিবিসির শিক্ষা ও পরিবার প্রতিবেদক ফ্রাঙ্কি ম্যাকক্যামলে সম্প্রতি দৌলতদিয়ার ওই যৌনপল্লিটি ঘুরে দেখতে পান, পল্লীর ভেতরে বেড়ে ওঠা অসংখ্য শিশুকে ছোটবেলা থেকেই গড়ে তোলা হচ্ছে যৌন ব্যবসার জন্যে এবং এক পর্যায়ে বাধ্য করা হচ্ছে এই ব্যবসায় সম্পৃক্ত হতে। এই শিশুদের বয়স ৭ থেকে ১১ এর মধ্যে।

এই দৌলতদিয়ার পল্লীতেই জন্ম নেয়া এক যৌনকর্মী জানিয়েছেন কৈশোরে পা দেয়ার আগেই যৌন ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ার অভিজ্ঞতার কথা। মাত্র ১১ বছর বয়সে এ পেশায় যুক্ত হন তিনি এবং তার প্রথম গ্রাহক ছিলেন মাত্র ১৫ বছর বয়সী এক কিশোর।

চাইলেই এ পল্লী থেকে বেরিয়ে যেতে পারেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, এখানে থাকতে কি আর ভালো লাগে? এখান থেকে বের হয়ে যেতে পারলেই তো ভালো। আমি মাঝে মাঝে বাইরে যাই। কিন্তু ফিরে আসতে হয়। কারণ আমার টাকার প্রয়োজন।

সমাজসেবা অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে ১৮ বছরের বেশি বয়সী যেকোনো নারী যৌন ব্যবসা চাইলে করতে পারেন এবং করার জন্যে তাকে আদালতে হলফনামা দিয়ে উল্লেখ করতে হয় যে তিনি এ পেশায় স্বেচ্ছায় এসেছেন, কারও চাপের মুখে পড়ে আসেননি।

কিন্তু দৌলতদিয়ার এ যৌনপল্লী্র অনেক নারী জানান তাদের শিশু বয়সেই যৌন পেশায় বাধ্য করা হয়েছিল

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 BangaliTimes.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com