রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ০৪:২২ অপরাহ্ন

ফের আন্দোলনে নামছে বুয়েট শিক্ষার্থীরা

ফের আন্দোলনে নামছে বুয়েট শিক্ষার্থীরা

ফের আন্দোলনে নামছে বুয়েট শিক্ষার্থীরা

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থীরা আবরার ফাহাদ হত্যার বিচারের দাবিতে মঙ্গলবার (১৫ অক্টোবর) থেকে ফের আন্দোলনে নামছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ৫ দফা দাবি মেনে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করার পরেও এবার ১০ দফা দাবি বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছে তারা। ১০ দফা দাবি বাস্তবায়ন এখনো শেষ হয়নি। আবরার হত্যার বিচার না পাওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরবো না। আগের মতোই মিছিল, সমাবেশ ও স্লোগানের মধ্য দিয়ে দাবি আদায়ের কর্মসূচি পালন করা হবে।

এ বিষয়ে বুয়েট উপাচার্য অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলাম বলেন, আমরা বিভিন্নভাবে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছি। আমরা তাদের দাবিগুলো মেনে নিয়েছি, সেক্ষেত্রে আমরা যথেষ্ট আন্তরিক। আমি রাজনীতিবিদ নই, তাই রাজনীতি বন্ধ করা আমার জন্য কঠিন কাজ। তারপরও তাদের দাবি মেনে আমি ক্যাম্পাসে রাজনীতি বন্ধ করেছি। আমি গতকাল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছি, তিনি আমাকে সহযোগীতার পূর্ণ আশ্বাস দিয়েছেন। আমরাও আন্তরিক, সরকারও আন্তরিক সেটা শিক্ষার্থীরাও বুঝতে পেরেছে।

তিনি বলেন, আমরা যে আন্তরিক শিক্ষার্থীরা সেটি বুঝতে পেরেছে সেজন্য তাদের ধন্যবাদ জানাই। আমরা যতদ্রুত সম্ভব এটি সমাধানের চেষ্টা করব। তাদের সমস্যাগুলো একে একে সমাধান করব। একদিনে তো অনেকদিনের সমস্যা সমাধান করা সম্ভব না। আমি বলছি যতবার প্রয়োজন তাদের সঙ্গে বসব। কারণ আমাদের একাডেমিক কার্যক্রম শুরু করতে হবে। আমি তাদের সহযোগিতা চাই।

সাধারণ শিক্ষার্থীরা জানান, আগে দাবি আদায়ে বিভিন্ন সময় বুয়েট ক্যাম্পাসে আন্দোলন করা হয়েছে। কর্তৃপক্ষ সেসব দাবি মেনে নেওয়ার ঘোষণা দিলেও তা বাস্তবায়ন হয়নি। এ কারণে শিক্ষার্থীরা প্রশাসনের উপর আস্থা হারিয়েছে। প্রশাসনের উচিত আগে শিক্ষার্থীদের আস্থা অর্জন করা।

এর আগে শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে গত শনিবার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বুয়েট প্রশাসন। দাবিগুলো হলো আবরারের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা, মামলায় অভিযুক্ত ১৯ জন শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার, ছাত্ররাজনীতি বন্ধ ও অছাত্রদেরকে হল থেকে বের করা, ছাত্র নির্যাতন প্রতিরোধে অনলাইন প্লাটফর্ম তৈরি এবং হলের চতুর্দিকে সিসিটিভি সংযোজন।

পরে দুপুরে বুয়েট ক্যাম্পাস ক্যাফেটেরিয়ার সামনে আলোচনা করে ভর্তি পরীক্ষার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে ১৩ ও ১৪ অক্টোবর আন্দোলন শিথিলের সিদ্ধান্ত নেয় আন্দোলনকারীরা। এ সময় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা জানান, বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা যথা সময়েই অনুষ্ঠিত হবে। আবরার হত্যার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের জন্য যে উৎকণ্ঠার সৃষ্টি হয়েছিল ভর্তি পরীক্ষার কারণে সেই আন্দোলন শিথিল করা হলো।

উল্লেখ্য, গত ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরে বাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে ডেকে নিয়ে আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করেন বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। আবরার বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের (১৭তম ব্যাচ) শিক্ষার্থী।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 BangaliTimes.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com