রবিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২০, ০৫:৩৯ অপরাহ্ন

সাগর কন্যা কুয়াকাটা।

সাগর কন্যা কুয়াকাটা।

সাগর কন্যা কুয়াকাটা।

কুয়াকাটা গিয়ে আপনি যে কাজটি কখনোই করবেন না তা হলো- কক্সবাজারের সাথে কুয়াকাটার তুলনা। যদি তুলনা করেন তাহলে আপনার মোটেই কুয়াকাটা ভাল লাগবে না! মনে হবে সমুদ্রের সাথে নদীর তুলনা। কক্সবাজারের তুলনায় কুয়াকাটার সমুদ্র অনেক শান্ত।

কুয়াকাটার প্রধান আকর্ষণ হলো, এখন থেকেই আপনি সূর্যোদয় এবং সুর্যাস্ত দুটোই দেখত পাবেন।
(ছবিগুলো তুলেছে সুদীপ)

কুয়াকাটা নিয়ে কয়েকটা কথা: কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতের অবস্থান পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া থানার লতাচাপলি ইউনিয়নে। প্রায় ১৮ কিলোমিটার দীর্ঘ এই কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত থেকে একই সাথে সূর্যোদয় আর সূর্যাস্ত দেখা যায়। এই বৈশিষ্ট কুয়াকাটাকে সকল সমুদ্র সৈকত থেকে অনন্য করেছে। সূর্যোদয় সবচেয়ে ভাল দেখা যায় সৈকতের পূর্ব প্রান্তের গঙ্গামতির বাঁক থেকে। আর সূর্যাস্ত দেখার ভাল জায়গা হচ্ছে কুয়াকাটার পশ্চিম সৈকত। সৈকতের এক পাশে বিশাল সমুদ্র আর অন্য পাশে আছে নারিকেল গাছের সারি। কুয়াকাটার পরিচ্ছন্ন বেলাভূমি, অনিন্দ্য সুন্দর সমুদ্র সৈকত, দিগন্তজোড়া সুনীল আকাশ এবং ম্যানগ্রুভ বন কুয়াকাটাকে দিয়েছে ভিন্ন মাত্রা।

একনজরে কুয়াকাটা এর দর্শনীয় স্থানগুলো:

*কুয়াকাটা বৌদ্ধ মন্দির
*ঐতিহ্যবাহী শতবর্ষী নৌকা
*কুয়াকাটার কুয়া
*কুয়াকাটা জাতীয় উদ্যান
*কাউয়ার চর
*চর গঙ্গামতী
*ঝাউ বন
*লাল কাঁকড়ার চর
*রূপালী দ্বীপ
*বৌদ্ধ বিহার
*মিষ্টি পানির কূপ
*রাখাইন পল্লী
*বার্মিজ মার্কেট
*শুঁটকি পল্লী
*ঝিনুক বীচ
*লেবুর চর
*তিন নদীর মোহনা
*সুন্দরবনের পূর্বাংশ (ফাতরার বন)

উপরে উল্লেখিত জায়গা গুলোতে ঘুরতে আপনাকে মোটরসাইকেল এবং স্পিডবোট বা ইঞ্জিন চালিত বড় নৌকা ভাড়া নিতে হবে।

যেভাবে কুয়াকাটা যাবেন : আমার কাছে কুয়াকাটা যাওয়ার সবচেয়ে সহজ রাস্তা মনে হয়েছে পটুয়াখালী হয়ে যাওয়া।
সদরঘাট থেকে বিকেলের পর সুন্দরবন-৮, কুয়াকাটা-১, এম ভি প্রিন্স আওলাদ-৭, কাজল-৭, এম ভি এ আর খান-১ প্রভৃতি লঞ্চ পটুয়াখালীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। এসব লঞ্চে প্রথম শ্রেণীর সিঙ্গেল কেবিন ভাড়া করতে ৮০০ থেকে ১০০০ টাকা পর্যন্ত লাগে, ডাবল কেবিন ভাড়া ১৮০০ থেকে ৩৫০০ টাকা আর ডেকের ভাড়া ২০০-৩০০ টাকা। লঞ্চ গুলো পটুয়াখালীর বিভিন্ন টার্মিনালে যায়। আমতলী ঘাট বা পটুয়াখালী লঞ্চ ঘাট যায় এমন লঞ্চে গেলে সুবিধা। পটুয়াখালী লঞ্চ ঘাট থেকে অটোতে বাস স্ট্যান্ড গিয়ে বাসে যেতে হবে কুয়াকাটা। সময় লাগবে ২ঘন্টার মত, ভাড়া ১৩০-১৫০ টাকা।

থাকার ব্যবস্থা : পর্যটকদের থাকার জন্য কুয়াকাটায় বিভিন্ন মানের আবাসিক হোটেল আছে। মান ও শ্রেনী অনুযায়ী এসব হোটেলে ৫০০-৫,০০০ টাকায় থাকতে পারবেন। মোটামুটি মানে থাকার জন্যে ৫০০-১৫০০ টাকায় হোটেল রুম পাবেন। শেয়ার করে থাকলে খরচ কম হবে। সিজন ও সরকারি ছুটির দিন ছাড়া গেলে আগে থেকে হোটেল বুক করার প্রয়োজন পরবে না। আর অবশ্যই দামাদামি করে নিবেন।

++ এডিস মশা থেকেই ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়। আর এই এডিস মশা জন্ম নেয় পরিস্কার পানিতে। তাই আপনার বাসার আশেপাশে যেন পরিস্কার পানি না জমতে পারে, সেই ব্যাপারে সতর্ক থাকুন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 BangaliTimes.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com