বুধবার, ০১ এপ্রিল ২০২০, ০৬:০৩ অপরাহ্ন

মোদিবিরোধী আন্দোলনে বিএনপির ঝাঁপিয়ে পড়া উচিত: মেজর আখতার

মোদিবিরোধী আন্দোলনে বিএনপির ঝাঁপিয়ে পড়া উচিত: মেজর আখতার

মোদিবিরোধী আন্দোলনে বিএনপির ঝাঁপিয়ে পড়া উচিত: মেজর আখতার

সর্বশক্তি নিয়ে বিএনপির মোদিবিরোধী আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়া সময়ের দাবি বলে মন্তব্য করেছেন দলটির সাবেক এমপি মেজর (অব.) আখতারুজ্জামান।

শনিবার বেলা ৩টার দিকে নিজের ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মেজর আখতার বলেন, মুজিব শতবার্ষিকীর অনুষ্ঠান সরকারের, বিশেষ করে শেখ হাসিনার একটি দুর্বল ও স্পর্শকাতর বিষয়। এই দিনে তার পক্ষে হার্ডলাইনে যাওয়া সম্ভব হবে না। আর যদি যায়ও তাতে হিতে বিপরীত হবে। মোদিবিরোধী ইস্যু বর্তমানে সবচেয়ে আলোচিত ও জনপ্রিয় ইস্যু।

‘কাজেই মোদিবিরোধী আন্দোলন খুব সহজেই তুঙ্গে নিয়ে যাওয়া যাবে। বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে নিতে পারলে দেশমাতার মুক্তি সহজেই অর্জন করা সম্ভব হলে বলে জনগণ বিশ্বাস করে। সুযোগ হাতছাড়া হলে মুক্তি দীর্ঘায়িত হবে বলে অনেকের ধারণা।’

বিএনপির এই নেতা আরও বলেন, সারা দেশের মানুষ মোদিকে বাংলাদেশে আসতে দিতে চায় না। পরিস্থিতি দ্রুত পরিবর্তন হচ্ছে এবং মোদিকে মুজিববর্ষে অনুষ্ঠানে আনার গ্রহণযোগ্যতা এবং নিরাপত্তার ঝুঁকি দিনে দিনে বৃদ্ধি পাচ্ছে। জনগণ প্রচণ্ডভাবে মোদিবিরোধী হয়ে উঠছে। শেষ পর্যন্ত সরকার মনে হয় ঝুঁকি নিতে পারবে না- যা প্রতিদিনই দৃশ্যমান হচ্ছে।

তিনি বলেন, জনগণ এখানে বিএনপিকে নেতৃত্বে দেখতে চায়। মোদিবিরোধী আন্দোলন সফলভাবে করতে পারলে সরকার পতন আন্দোলন অনেক সহজ হয়ে যাবে এবং তখন দেশমাতার মুক্তি কেউ ঠেকাতে পারবে না। সরকার দেশমাতার মুক্তি দিতে বাধ্য হবেই হবে। তাই মোদিবিরোধী আন্দোলনই মূলত সরকারবিরোধী আন্দোলনে রুপান্তরিত হবে।

সাবেক এই এমপি বলেন, মোদিকে বাংলাদেশে আসতে না দেয়ার ব্যাপারে হেফাজতে ইসলাম পরিষ্কার অবস্থান নিয়ে নিয়েছে। তাদের আমির অব্যাহতভাবে মোদিবিরোধী বক্তব্য দিচ্ছেন। আবার বামেরাও তাদের অবস্থান পরিষ্কার করে ১৫ ও ১৬ মার্চ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। অন্যরা তাদের অবস্থান নিয়ে এগিয়ে গেলে মোদিবিরোধী আন্দোলনের নেতৃত্ব খুবই স্বাভাবিকভাবে চলে যাবে হেফাজতে ইসলামের বা অন্য কারো হাতে।

‘অতীতের ভুলের মতো যদি আবার পেছন থেকে হেফাজতে ইসলামকে সমর্থন দিয়ে মোদিবিরোধী আন্দোলনে বিএনপি অংশগ্রহণ করতে চায় তাহলে বিএনপি মোদিবিরোধী আন্দোলনে হেফাজতে ইসলামের সহযোগী হিসেবে চিহ্নিত হবে। এর ফলে মোদিবিরোধী আন্দোলনের নেতৃত্ব থাকবে হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শফী সাহেবের কাছে; সেখানে বিএনপি সরকারের সঙ্গে বোঝাপড়ার সুযোগ হারাবে।’

মেজর আখতার বলেন, জনগণ পরিষ্কারভাবে মনে করে মোদিবিরোধী আন্দোলনের ডাক বিএনপির দেয়া উচিত এবং বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নেতৃত্বে সেই আন্দোলন গড়ে তোলা উচিত। এতে আন্দোলনের প্রথম অবস্থানে তারেক রহমান চলে আসবে; যার ফলে নেতৃত্ব তারেক রহমান দেবেন এবং দায় এবং সুবিধা দুটিই তিনিই ভোগ করবেন।

‘একইসঙ্গে সরকার ও মোদিবিরোধী আন্দোলনের এই দুর্লভ সুযোগটি হারানো ইতিহাসে ভুল হিসেবে চিহ্নিত হবে। তাই জনগণ মনে করে বিএনপির নেতৃত্বে একটি সর্বদলীয় মোদিবিরোধী মোর্চা অবিলম্বে গঠন করে সবাইকে মোদিবিরোধী আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়া উচিত।’

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 BangaliTimes.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com