রবিবার, ৩১ মে ২০২০, ০৬:৫৭ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৭৬৮ জন করোনা শনাক্ত, মারাগেছেন আরও ২৮ জন 30TH MAY, 2020

সংবাদ শিরোনাম:
জ্বর সর্দি-কাশি প্রতিরোধে পাতে রাখুন কাঁচামরিচ আল-আকসা মসজিদের গ্র্যান্ড ইমামকে আটক করল ইসরাইল করোনার ভ্যাকসিন ‘প্রস্তুত’, ৯৯ শতাংশ কাজ করার নিশ্চয়তা চীনের লিবিয়া হ’ত্যা’কা’ন্ডের মূলহোতা বাংলাদেশী শামীম, তাকে হ’ত্যার প্রতিশোধ নিতে ২৬ হ’ত্যা’কা’ন্ড (বিস্তারিত) ফেসবুকে মাফ চেয়ে পোস্ট দেয়ার কিছুক্ষণ পরই সাংবাদিকের মৃত্যু করোনা চিকিৎসায় ডা. জাফরুল্লাহ’র উদ্যোগে এবার ‘প্লাজমা ব্যাংক’ দক্ষিণ কোরিয়ায় চালুর একদিন পরই বন্ধ আড়াই শতাধিক স্কুল লিবিয়ার কাছে ক্ষতিপূরণ চেয়েছে বাংলাদেশ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী চালু হচ্ছে গণপরিবহন, বাড়ছে ৮০ শতাংশ ভাড়া সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৯তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ
সিঙ্গাপুর সরকারের উদ্যোগে প্রবাসী শ্রমিকদের পাশে ফেরদৌস-ঋতুপর্ণা

সিঙ্গাপুর সরকারের উদ্যোগে প্রবাসী শ্রমিকদের পাশে ফেরদৌস-ঋতুপর্ণা

সিঙ্গাপুর সরকারের উদ্যোগে প্রবাসী শ্রমিকদের পাশে ফেরদৌস-ঋতুপর্ণা

করোনার এই সংকটকালে সিঙ্গাপুরে আটকা পড়েছে কয়েক লাখ বাংলাদেশি ও ভারতীয়

শ্রমিক। জানা গেছে, এই দুঃসময়ে শ্রমিকদের পাশে রয়েছে সিঙ্গাপুর সরকার।

পাশাপাশি শ্রমিকদের মনোবল বৃদ্ধির জন্য স্থানীয় সরকার বেশ কিছু উদ্যোগ

নিয়েছে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা দর্পণ। যৌথ এই উদ্যোগের নাম

‘আওয়ার স্টোরিস, ইউর স্টোরিস’। অনলাইন এই প্ল্যাটফর্মে নিজেদের গল্প, গান,

কবিতাসহ নানা কিছু শোনাবেন দুই বাংলার তারকারা। এ তালিকায় রয়েছেন—বাংলাদেশের

গুণী নির্মাতা মোস্তফা সরওয়ার ফারুকী, নুসরাত ইমরোজ তিশা, চিত্রনায়ক ফেরদৌস,

কলকাতার অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, অভিনেতা প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জি, গায়িকা

লোপামুদ্রা মিত্র প্রমুখ। এ প্রসঙ্গে মোস্তফা সরওয়ার ফারুকী বলেন—সিঙ্গাপুর

সরকারের এই উদ্যোগের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পেরে খুবই আনন্দিত। কঠোর লকডাউনের

সময়ে বাংলা ভাষাভাষী শ্রমিকদের মাঝে ইতিবাচক মনোভাব ছড়িয়ে দিতেই এই প্রচেষ্টা।

প্রিয় ভাই-বোনেরা, এই কঠিন সময়ে আপনারা একা নন।

ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত এখন সিঙ্গাপুরে স্বামী-সন্তানদের নিয়ে অবস্থান করছেন। এমন

উদ্যোগের সঙ্গে থাকতে পেরে তিনিও খুশি। এ অভিনেত্রী বলেন—এই প্রকল্পের সঙ্গে

যুক্ত হতে পেরে খুব খুশি। দর্পণের পক্ষ থেকে শ্রেয়সী সেন ও সিঙ্গাপুর সরকারের তরফ

থেকে আমার কাছে এই প্রস্তাব আসে। এই প্রকল্পটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

কঠিন এই সময়ে আমরা যদি শ্রমিকদের উদ্বুদ্ধ করার জন্য কিছু করতে পারি, তাহলে

ভালো লাগবে। অন্যদিকে নুসরাত ইমরোজ তিশা বলেন— করোনার এই সংকটকালে

সিঙ্গাপুরে লকডাউন চলছে। সেখানকার বাংলা ভাষাভাষীর ভাই-বোনদের জন্য সিঙ্গাপুর

সরকারের উদ্যোগে আমরা আপনাদের পাশে আছি! কারণ আপনারা আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *