শুক্রবার, ০২ অক্টোবর ২০২০, ০৫:৫০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
আরেক দফা বাড়ল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি,কলেজশিক্ষার্থীদের ক্লাস শুরু ৪ অক্টোবর কাশ্মীরে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর গুলিতে ভারতীয় সেনাসদস্য নিহত এরদোয়ানের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ আজারবাইজানের ফার্স্ট লেডির বাবরি মসজিদ মামলা: ভারতের আদালতের আরেকটি লজ্জাজনক রায়! ‘ভারতে এতটা কোণঠাসা কখনোই ছিল না মুসলমানরা’ ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে তিন ভারতীয় সেনা নিহত মি’ন্নির ফাঁ’সি কা’র্য’কর হলে আমি মিলাদ দেব: নয়ন ব’ন্ডের মা কা’রা’গার থেকে মুঠোফোনে বাবা-মায়ের সঙ্গে মি’ন্নির কান্নাকাটি সিনেমার গল্পকেও হার মানায় রিয়াজ ও তার স্ত্রীর প্রেম-বিয়ের কাহিনী ‘ইনশাল্লাহ’ বললেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট প্রার্থী বাইডেন, টুইটারে ঝড়
সাগরে ইলিশ না পেয়ে হতাশ জেলেরা

সাগরে ইলিশ না পেয়ে হতাশ জেলেরা

সাগরে ইলিশ না পেয়ে হতাশ জেলেরা

দীর্ঘ ৬৫ দিনের নিষেধাজ্ঞার পর থেকে আশানুরূপ ইলিশ পাচ্ছেন না জেলেরা। এজন্য তারা পড়েছেন মহাবিপাকে। আষাঢ়, শ্রাবণ, ভাদ্র, আশ্বিন- এ চার মাস ইলিশের ভরা মৌসুম। বছরজুড়ে এই অঞ্চলের জেলেরা এই দিনগুলোর অপেক্ষায় থাকে। কিন্তু বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপে উপকূলজুড়ে বৈরী আবহাওয়ার প্রভাবে সাগর উত্তাল থাকায় জেলেরা নিরাপদে আশ্রয় নিয়েছে।

পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ ভাগ মানুষ মাছ শিকারের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন। এ উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নে নিবন্ধিত জেলের সংখ্যা ১৩ হাজার ৭৯৪ জন। তবে জেলেদের দাবি, প্রকৃত সংখ্যা এর অনেক বেশি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সাগর উত্তাল থাকায় জেলেরা সবাই নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নিয়েছেন। জীবনের ঝুঁকি নিয়েও যারা সাগরে বেরিয়ে পড়েছেন তারা ফিরছেন খালি হাতে। এই আবহাওয়া কবে ঠিক হবে আর তারা মাছ শিকারে যাবে এ নিয়ে তারা বড় দুশ্চিন্তায় আছে।

সাগরে মাছ শিকারি কোড়ালিয়া গ্রামের মোঃ রফিক প্যাদা জানান, সাগর উত্তাল থাকায় ৮ -১০ দিন কোনো কামাই বাণিজ্য নাই, সাগরে মাছ নাই।

তিনি আরও বলেন, মাছ পাইলে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে হইলে মাছ ধরতে যাইতাম। যারা ঝুঁকি নিয়ে মাছ ধরতে গিয়েছিল ৫০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে, তারা অল্পকিছু মাছ পাইছে। এ জন্য কেউ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যায় না।

কোড়ালিয়া ঘাটের মৎস্য ব্যবসায়ী সভাপতি জহির উদ্দিন হাওলাদার বলেন, গত কয়েকদিন ধরে আড়তে কোনো ইলিশ আসছে না। আবহাওয়া খারাপ থাকায় সিংহভাগ জেলে নৌকা-ট্রলার নিয়ে এখন তীরে আছে। অনেকে মৎস্য বন্দর মহিপুর গিয়েও আশ্রয় নিয়েছে।

গুরুত্বপূর্ণ সব সংবাদ  পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

https://www.facebook.com/BangaliTimesofficel

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *