বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১১:১১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
মুহাম্মদ (সঃ) কে অবমাননা :হুঙ্কার দিয়ে মাঠে নেমেছেন এরদোগান ইমরানসহ একাধিক বিশ্বনেতা ! দ্বিতীয়বার ব্যবসায়ীকে বিয়ে ক’রছেন জনপ্রিয় নায়িকা অপু বিশ্বাস সোহেল চৌধুরীর পরিচিতজনদের খুঁজছেন কন্যা লামিয়া ক্যাটরিনার বিয়ে দিলেন অমিতাভ ও জয়া বচ্চন! সা’রাজীবন যৌ’ন শ’ক্তি ধরে রাখতে যে খাবার খাবেন ফ্রান্সে কিছুক্ষণের মধ্যেই বড় হা’ম’লার ঘোষণা টিভি দেখতে গিয়ে একাধিকবার ধ’র্ষণের শি’কার কলেজছাত্রী বিয়ের রাত থেকেই স্বামীর বি’কৃত যৌ’নস’ঙ্গ’মে মৃ’ত্যু হলো কিশোরী স্ত্রী মাত্র দেড় মাস হলো বিয়ে হয়েছে আর সেদিন থেকেই ঘুমাতে পারিনা ছে’লেকে বাঁ’চাতে নিজের কিডনি দিতে চান মা এখন শুধু প্রয়োজন চিকিৎসা খরচ
যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা আজারবাইজানের প্রেসিডেন্টের

যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা আজারবাইজানের প্রেসিডেন্টের

যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা আজারবাইজানের প্রেসিডেন্টের

আর্মেনিয়ার বিভিন্ন স্থাপনা লক্ষ্য করে কামান থেকে মুহুর্মুহু গোলা নিক্ষেপ করে আজারবাইজানের সেনারা। ধ্বংস করে দেয়া দেয়া হচ্ছে জাবরাইল এলাকার বিভিন্ন স্থাপনা। আর্মেনিয়ার উত্তর ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলের দিকে সংঘাতের তীব্রতা আরও বেড়েছে। আজারবাইজানের আগদাম অঞ্চলের বেশ কয়েকটি গ্রামের বাড়ি ঘর গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে। পুড়ে যায় বেশ কিছু এলাকাও।

সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের দুই রাষ্ট্র ১৯৮৮ থেকে ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত ভয়াবহ যুদ্ধের পর যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হলেও নতুন করে সৃষ্ট সংঘাতের স্পষ্ট কারণ এখনো জানা যায়নি। তবে শর্ত ছাড়াই বিতর্কিত অঞ্চল না ছাড়া পর্যন্ত যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট। আর লড়াই করেই শান্তি ফেরানোর কথা বলেছেন আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী।

আরও পড়ুন: যুক্তরাষ্ট্রে শেষকৃত্যানুষ্ঠানে হামলা, ৭ জন গুলিবিদ্ধ

আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী নিকোল পাশিন্যান বলেন, ‘আমাদের মূল লক্ষ্য হলো পরিস্থিতির যাতে উন্নতি হয় সে ব্যবস্থা করা। পুনরায় শান্তি স্থিতিশীলতা ফেরাতে আমরা কাজ করে যা ‘।

আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলকহাম আলিয়েভ জানান, দীঘদিন ধরে বিরোধপূর্ণ অঞ্চলটির সমস্যা সমাধানে আমরা সমঝোতার কথা বলে আসছি। তবে এটি অবশ্যই ১৯৯২ সালে গঠিত ইউরোপের নিরাপত্তা সংস্থার মাধ্যমে হতে হবে।

নাগরনো-কারাবাখ আজারবাইজানের অন্তর্ভুক্ত হলেও অঞ্চলটি পরিচালনা করছে আর্মেনিয়ার আদিবাসী বিচ্ছিন্নতাবাদীরা। আজারবাইজানের বিরুদ্ধে বেসামরিক নাগরিকদের লক্ষ্য করে হামলার অভিযোগ করেছে তারা।

এদিকে, স্বঘোষিত নাগরনো কারাবাখ প্রজাতন্ত্রের মুখপাত্র বাহরাম পগোস্যানের জানিয়েছেন, ‘পুরো এলাকাজুড়ে বেসামরিক নাগরিকদের ঘরবাড়ি লক্ষ্য করে আজারবাইজানের চালানো হামলার ছাপ রয়েছে। তারা শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক আচরণ করে আসছে’।

বিরোধপূর্ণ নাগরনো-কারাবাখ অঞ্চলে সংঘাত বন্ধে জার্মানিতে বিক্ষোভ হয়েছে। বর্তমাব পরিস্থিতিকে ভয়াবহ আখ্যা দিয়ে যুদ্ধ বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী। শর্ত ছাড়াই সংঘাতে লিপ্ত দেশ দুটিকে যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানিয়েছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁও। একইসঙ্গে, আজারবাইজানকে সমর্থন দেয়া তুরস্কের সামরিক উস্কানিকে অত্যন্ত বিপদজনক আখ্যা দিয়ে দেশটির তীব্র সমালোচনা করেন তিনি।

গুরুত্বপূর্ণ সব সংবাদ  পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

https://www.facebook.com/BangaliTimesofficel

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *