শনিবার, ০৬ মার্চ ২০২১, ০১:২৭ পূর্বাহ্ন

যে কারণে বাংলাদেশের না’য়িকা’রা এত মো’টা

যে কারণে বাংলাদেশের না’য়িকা’রা এত মো’টা

যে কারণে বাংলাদেশের না’য়িকা’রা এত মো’টা

স্বাস্থ্য থাকা ভালো। তবে সেটা সুস্বাস্থ্য। সেলিব্রিটিরা সাধারণত মানুষের আইডল হয়ে থাকে। মানুষ সেলিব্রিটিদের পোশাক-আশাক, চলাফেরা ফলো করে থাকে। কিন্তু গত কয়েক দিন ঈদের নাট’ক দেখতে গিয়ে মা’থায় স্বাস্থ্যের ব্যাপারটি ঘুরপাক খাচ্ছে।আরে কয়েকটি নাট’কে নায়িকার স্বাস্থ্য দেখে মনে এখন একটা প্রশ্ন- ‘তারা এত মোটা কেন?’ এত মোটা নায়িকা নির্মাতা নিচ্ছেন কেন?এমন প্রশ্ন দেখে পরিচালক হয়তো বলবেন, মোটা হলেই কী’ তারা মানুষ না। না ভাই, তারা মানুষ না, তারা সেলিব্রিটি।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

একটি নাট’কে লাক্স তারকা বাঁধনকে দেখে তো চোখ ছানাবড়া হয়ে যাওয়ার অবস্থা। আবার ঊর্মিলাকে তো মনে হচ্ছে, বাঁধনের স’ঙ্গে প্রতিযোগিতা করে মোটা হয়েছেন। ভাবনার কথা না বললেই চলে। এদের বেশ কয়েকটি নাট’ক দেখে অনেকেই মোটা হয়ে যাওয়া নায়িকাদের সমালোচনা করেছেন।

যারা নিজের স্বাস্থ্য নিয়ে এতটুকু সচেতন না, তারা আবার সেলিব্রিটি হয় কী’ করে? এর চেয়ে তিশা, মম, প্রভা অনেকটাই নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রেখেছেন। একটি চলচ্চিত্রে নায়িকার প্রাধান্য তেমন একটা না থাকলেও নাট’কে কিন্তু নায়িকার গু’রুত্ব বেশি দেখা যায়। এবারের ঈদের নাট’কেও এ প্রবণতা দেখা গেছে। বিশেষ করে মোশাররফ করিম, জাহিদ হাসান, অ’পূর্ব, মিশু সাব্বির, আরফান নিশোর নাট’কগু’লোয় নায়কের প্রাধান্য দেখা গেছে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

এ ছাড়া প্রায় সব নাট’কেই নায়িকাকেই বেশি দেখানো হয়েছে। এবারও নেতৃত্ব দিয়েছেন তিশা। কিন্তু অ’ভিনয়ে ঘুরেফিরে সেই মুখই দেখতে হচ্ছে। নাট’কের গল্পে যেমন বৈচিত্র্য নেই। তেমনি অ’ভিনয়শিল্পীদের মধ্যেও নতুনরা তেমন ছাপ রাখতে পারেননি। নাট’ক দেখলে মনে হয়, নতুন শিল্পীদের বড়ই অভাব আমা’দের।
আবার যারা নতুন শিল্পীদের নিয়েছেন, তাদের চরিত্রগু’লো নিয়ে আরও ভাবা উচিত ছিল। মানুষ বছরজুড়ে টিভিতে খবরই দেখে বেশি। শুধু ঈদের সময় নাট’ক কিংবা অনুষ্ঠানের দিকে নজর দেয়। সেই সময়েই নির্মাতাদের কারিশমা দেখানোর উপযু’ক্ত সময়। কিন্তু এখানেই ব্যতিক্রম।

ঈদের আগে তাড়াহুড়া করে নাট’ক নির্মাণের হিড়িক পড়ে। তাতেই দেখা দেয় বিপত্তি। নাট’ক বানানোর পর এডিটিং একটি গু’রুত্বপূর্ণ কাজ। অথচ ঈদের অধিকাংশ নাট’কের এডিটিং খুবই বাজে। শব্দগ্রহণও খুব নিম্নমানের। অনেক নাট’কের সংলাপ বুঝতে খুবই ক’ষ্ট হয়েছে। এ ব্যাপারে

টিভি চ্যানেলগু’লোকেও সচেতন হওয়ার সময় এসেছে। ঈদের আগে নির্মাতাদের পর্যা’প্ত সময় দেওয়া প্রয়োজন। টিভি চ্যানেল সময় কতটুকু দেয়? সেই প্রশ্নের চেয়ে গু’রুত্বপূর্ণ হলো নির্মাতাকে সময় নিয়েই নির্মাণে যেতে হবে। তা না হলে শুধু ব্যবসায়িক চিন্তা করে নাট’ক বানালে এই অবস্থা সামনে আরও খা’রাপের দিকেই যাব’ে।

গুরুত্বপূর্ণ সব সংবাদ  পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।

https://www.facebook.com/BangaliTimesofficel

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *