রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ০১:২৮ অপরাহ্ন

ভাসমান পেয়ারা বাজার

ভাসমান পেয়ারা বাজার

ভাসমান পেয়ারা বাজার

আটঘর,কুরিয়ানা,ঝালকাঠি,বরিশাল….
সবুজ গাছের ছায়ায় আছে এক শ্যামল পরিবেশ। সোনার বাংলার নানান পাখি, নানান মধুর সুর, পাহাড়, নদীর পানি দেখতে কি সুন্দর। আপনারা হয়তো ভেনিসের গল্প শুনেছেন। থাইল্যাণ্ড-এর ফ্লোটিং মার্কেটের ছবি দেখেছেন। আবার অনেকে কেরালার ছোট ছোট নৌকায় করে এলাকাবাসীর ভ্রমণ আর জীবনযাপনের গল্পও শুনেছেন। কিন্তু ‘দেখা হয় নাই চক্ষু মেলিয়া’ এই কবিতার মতো অবস্থা, নিজের দেশের ভাসমান বাজারের কথাই শোনেন নি অনেকে।

আটঘর কুরিয়ানা। নামটা শুনতে কেমন মনে হলেও জায়গাটা সত্যি অনেক মজার। সবুজ গাছ-গাছালির পেট চিড়ে বয়ে গেছে ছবির মতো নদী। যে নদীর বুকে ভাসমান বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় ফলের বাজার।বাংলাদেশের উৎপাদিত মোট পেয়ারার প্রায় ৮০ ভাগই উৎপাদিত হয় ঝালকাঠির বিভিন্ন গ্রামে।আটগর, কুরিয়ানা, ডুমুরিয়া, বেতরা, ডালুহার, সদর ইত্যাদি এলাকার প্রায় ২৪,০০০ একর জমতে পেয়ারার চাষ হয়।প্রতি মৌসুমে এ বাজারে প্রায় ৫০০ কোটি টাকার বেচাকেনা হয়।

এখন বর্ষাকাল। এখনই উপযুক্ত সময় এই ভাসমান বাজারে ভেসে ভেসে বেড়ানোর। এ সময় দেশের বৃহত্তর পেয়ারার বাজার এসে বসে এই ভাসমান অঞ্চলে। ফলে বেড়ানোর পাশাপাশি রসনার তৃষ্ণাও মিটবে বেশ।
গ্রামবাংলার সাধারণ এই গ্রামটি কিভাবে এতো অপরূপ হয়ে যায় বর্ষায় তা ভাষায় প্রকাশ করা আসলেই সম্ভব নয়। ভ্রমণ পিয়াসী সকলের কাছে অনুরোধ লঞ্চ ভ্রমণে আপত্তি না থাকলে এখনি উপযুক্ত সময় নিজের দেশের এই চমৎকার দৃশ্য উপভোগের। আর অবশ্যই সচেতন থাকবেন যেন আপনার ভ্রমণে প্রকৃতি দুঃখ না পায়। পানিতে বর্জ্য, পলিথিনের প্যাকেট,ড্রিংকস-এর বোতল ফেলা থেকে বিরত থাকুন। নিজের দেশকে সুন্দর রাখুন।

আমাদের সকলের ইচ্ছা এবং অবদান থাকলে হয়তো এখানেও গড়ে উঠতে পারে কেরালা বা কাশ্মীরের মতোন আকর্ষণীয় একটি পর্যটন কেন্দ্র।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 Bangalitimes.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com