জোহরের নামাজ পড়ে কামরাংগির চর দিয়ে আসছিলাম।

জোহরের নামাজ পড়ে কামরাংগির চর দিয়ে আসছিলাম। হঠাৎ দেখা হলো এক বন্ধুর সাথে। কয়েক বছর আগেও ছেলেটি মোটা তাজা আর ইয়াং ছিল। আজকে তাকে দেখে আমি বিস্মিত হয়ে গেলাম। কথাবার্তার এক ফাঁকে জিজ্ঞাসা করলাম ‘বন্ধু তোমার এই অবস্থা কেন।? কিছুদিন আগেওতো তুমি খুব ইয়াং আর স্মার্ট ছিলে। এখনতো শুটকির মতো হয়ে গেছো। চাপা যেখানে থাকার কথা সেখানে নেই।
বেচারা তখন কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেই ফেলল ‘বন্ধু আমাকে বাঁচাও!”

আমি অবাক হয়ে ওর হাতটা ধরে বললাম ‘কিছু হয়েছে কি? কোনো রোগে আক্রান্ত হয়েছো নাকি?’
– না, আমি অনেকদিন ধরে পর্নোগ্রাফিতে আক্রান্ত। এই ভাইরাসটা থেকে যতোই বিরত থাকার চেষ্টা করি কিন্তু পারি না। আজ দুই বছর যাবত নিজের সাথে একপ্রকার যুদ্ধ করে যাচ্ছি।
এটা থেকে বাঁচার একটা উপায় বলে দাও!’
আমি ওর হাতের স্মার্টফোনটা নিলাম। গুগলে গিয়ে ‘ওয়েলকাম টু মাই এক্টিভেটি’ লিখে সার্চ দিলাম। দেখলাম ছেলেটা দু’দিন আগেও একটি পর্নো সাইটে ব্রাউজ করেছিল।
আমি প্রথম উপদেশ দিলাম স্মার্টফোন ইউজ করা ছেড়ে দিতে হবে৷ যদি সম্ভব হয় তাহলে বিয়ে করে ফেলতে। নিজের পক্ষ থেকে যতটুকু পেরেছি ওকে বুঝিয়েছি৷ বাকিটা আল্লাহর হাতে৷
.
মূলত আমরা এখন এক ভয়াবহ জগতে বসবাস করছি। একটি বুড়ো পৃথিবীতে। ছোট বড় সবার হাতেই এখন স্মার্টফোন। ৮ বছরের একটা ছেলের হাতে এখন ৮ জিবি র‍্যামের মোবাইল দেখা যায়। অথচ ওর শৈশব হওয়ার কথা ছিল অন্যরকম। দৌঁড়ে বেড়ানোর শৈশব৷ পারার বাচ্চাদের সাথে লাফালাফি করে বেড়ানোর দিন। কিন্তু সুশীল সমাজের অশ্লীল বাবা মায়েরা এখন আট বছরের একটা ছেলের কাছেও ফোন দিয়ে দেয়। রাতের আধারে কাথা মুড়ি দিয়ে সেই ছেলেটা মোবাইলে কি করছে তা কি তার সভ্যতার চাদরে লেপ্টে থাকা বাবা মায়েরা জানেন?
হয়ত জানেন৷ কিন্তু বাধা দেন না। একটাইতো ছেলে।
.
আমাদের শৈশবটা কেমন হওয়ার কথা ছিলো- সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠে কায়দা নিয়ে এলাকার মসজিদের মক্তবে দলবেঁধে পড়তে যাওয়া। স্কুল শেষে ব্যাটবল নিয়ে মাঠে যাওয়া। মুশলধারা বৃষ্টিতে বইখাতা বাঁচাতে একহাতে স্যান্ডেল আর আরেক হাতে বইখাতা নিয়ে দৌড়ে বাড়িতে আসা। মাঝেমাঝে রাস্তায় পরে যাওয়া৷ কাদামাখা শরীর নিয়ে বাসায় আসা৷ মায়ের বকুনি খাওয়া। রাতের বেলা কারেন্ট চলে গেলে এলাকার ছোট বাচ্চারা একসাথে হয়ে ভূতের গল্প করা৷
কিন্তু প্রযুক্তির সাথে সাথে হারিয়ে যাচ্ছে এইসব সোনালী দিন। সেই সুন্দর শৈশব এখন আর দেখা যায় না।
এখন –
জন্মদিনে মোবাইল গিফট না করলে খোকা ভাত খাবেনা ঘরে।মোবাইল কিনে দাও। ঘরে হাইস্পিডের ইন্টারনেট এনে দাও। বন্ধুদের সাথে পার্টি করবো টাকা দাও।
এইতো সেদিনও আমি পাঁচটা ছেলের সাথে একটা মেয়েকে দেখেছি৷তারা কি নিয়ে যেন হাসাহাসি করছিল। একপর্যায়ে মেয়েটার কিছু কথা আমার কানে এসে পৌঁছলো ‘দোস্ত এইগুলা পুরাতন, নতুন গুলা দে৷ এইগুলা দেখলে আর এখন এতটা ফিলিংস কাজ করে না৷’
আরেকটি মেয়েকে দেখেছি –
কয়েকটি ছেলের মাঝখানে বসে মোবাইলে লুডু খেলছে। মাঝেমধ্যে মুখ থেকে খুব বিশ্রী কথাবার্তা বের হচ্ছে৷
আমরা মানুষ। ছোট থেকে বড় হওয়ার সাথে সাথে অনেক কিছুই বুঝতে শিখি। কোন কথাটা সভ্য আর কোনটা অসভ্য সেটা বুঝার ক্ষমতাও আমাদেরকে আল্লাহতালা দিয়েছেন।
আচ্ছা বুকে হাত দিয়ে বলুনতো, আজকাল পাঁচটা ছেলের সাথে প্রকাশ্যে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে যেই মেয়েটা চলাফেরা করছে তার সাথে কি আপনার বিয়ে হবে না? হতেওতো পারে!
একাধিক মেয়ের সাথে যিনায় লিপ্ত থাকা ছেলেটির সাথে কি বোন আপনার বিয়ে হবে না? হতেওতো পারে। অস্বাভাবিক কিছু না।

পুরুষরা এখন আর নারীদের চোখের তারায় ভালোবাসা খুঁজে বেড়ায় না, তারা ভালোবাসা খুঁজে বেড়ায় নারীর শরীরের ভাজে।
.
যে জীবন ছিল ঘাসফুল আর মাতৃসম রূপালী জলের ঘ্রাণ নেওয়ার। ফাগুনের অনন্ত নক্ষত্রবিথীর নীচে দাঁড়িয়ে তারা গোনার। ফড়িং আর প্রজাপতির পিছনে দোঁড়ে বেড়ানোর। যে জীবন ছিল আলিফ লায়লা আর সিন্দাবাদের, যে জীবন ছিল ফাদ পেতে শালিক ধরার,পুকুরে বড়শি ফেলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসে থাকার,যে জীবন ছিল রূপকথার খেলাঘরে হারিয়ে যাবার,সেই জীবনে ভর করলো জটিলতা, অস্থিরতা।
অনাবিষ্কৃত আকাঙ্খাগুলো একে একে আবিষ্কৃত হলো,সেই আকাঙ্খাগুলো বিকৃত উপায়ে পূরণ করে দিতে এলো প্রযুক্তি।

আমরা ভাঙতে থাকলাম। আমরা হারিয়ে গেলাম ভুল স্রোতে৷ এক আকাশ শ্রাবণের সংগে আজীবন সখ্যতা হলো আমাদের।
আমরা নষ্ট হলাম।
(মুক্ত বাতাসের খোঁজে)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Next Post

হাদিসে এসেছে, জমজমের পানি যে উদ্দেশ্য নিয়ে পান করা হয়, তা পূরণ হয়।

Sun Apr 11 , 2021
হাদিসে এসেছে, জমজমের পানি যে উদ্দেশ্য নিয়ে পান করা হয়, তা পূরণ হয়। [আহমাদ, আল-মুসনাদ: ১৪৮৪৯; ইবনু মাজাহ, আস-সুনান: ৩০৬২] . বিখ্যাত মুহাদ্দিস আব্দুল্লাহ্ ইবনু মুবারক (রাহিমাহুল্লাহ) জমজমের কাছে এসে এই পানি এক ঢোক পান করে কিবলার দিকে মুখ করে বলেন, ‘‘হে আল্লাহ!…আমি এই পানি কিয়ামতের দিন পিপাসা নিবারণের আশায় […]