রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ১২:৩২ অপরাহ্ন

গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে আবেদন করবেন রুবেল!

গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে আবেদন করবেন রুবেল!

গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে আবেদন করবেন রুবেল!

ঢালিউডের অ্যাকশন হিরো হিসেবেই বেশি পরিচিত রুবেল। তার অভিনীত বেশিরভাগ ছবিই ব্যবসাসফল হয়েছে। তিনি শুধু অভিনেতাই নন, প্রযোজক, পরিবেশক, কণ্ঠশিল্পী ও চিত্রপরিচালক, ফাইট ডিরেক্টরও। প্রায় আড়াইশ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন মার্শাল আর্টে পারদর্শী এ অভিনেতা।

সম্প্রতি ‘রাঙা সকাল’ শিরোনামের একটি টিভি অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে হাজির হয়েছিলেন এক সময়ের পর্দা কাঁপানো এই নায়ক। তিনি জানান, এ পর্যন্ত মোট ৯৭জন নায়িকার বিপরীতে তিনি অভিনয় করেছেন। সংখ্যাটি ১০০ পূর্ণ হবার পর গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে আবেদন করবেন তিনি।

চলচ্চিত্রে রুবেল পা রেখেছিলেন প্লেব্যাক সংগীতশিল্পী হিসেবে। চার বছর নজরুল সংগীতে এবং সাড়ে চার বছর শাস্ত্রীয় সংগীতে তালিম নিয়েছিলেন তিনি। ব্যাডমিন্টন, ফুটবল এবং কারাতে চ্যাম্পিয়নশিপে জাতীয়ভাবে পুরস্কৃতও ছিলেন তিনি।

‘রাঙা সকাল’-এ রুবেল তার উল্লেখযোগ্য বেশ কয়েকটি সিনেমার গল্প বলেছেন। বিশেষ এই পর্বটি সঞ্চালনা করেছেন রুম্মান রশীদ খান ও লাবন্য।পর্বটি প্রচারিত হবে ঈদের ৬ষ্ঠ দিন, সকাল ৭টা থেকে ৯টায়, মাছরাঙা টেলিভিশনে।

ভারতের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিশীথের গাইবান্ধার বাড়িতে উচ্ছ্বাস

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত নিশীথ প্রামাণিক ভারতের মন্ত্রিসভায় স্বরাষ্ট্র, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন। সেই আনন্দের ঢেউ এসে লেগেছে বাংলাদেশে গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার হরিনাথপুর ইউনিয়নের ভেলাকোপা গ্রামে তার পৈতৃক বাড়িতে।

জানা গেছে, দেশভাগের আগে নিশীথের বাবা ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহারে চলে যান। কিন্তু তাঁর কাকা, জ্যাঠা এবং তাঁদের সন্তান-সন্ততিরা এখনো ভেলাকোপায় বাস করেন। তাঁরাই নিশীথের মন্ত্রী হওয়ার সংবাদে নিজ বাড়ির আঙিনায় প্রতিবেশীদের নিয়ে মিষ্টিমুখ করে আনন্দ-উল্লাস করেছেন।

নিশীথের জ্যাঠা দক্ষিণারঞ্জন প্রামাণিক বলেন, নিশীথের বাবা বিধুভূষণ প্রামাণিক দেশভাগের আগে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলার দিনহাটা থানার ভেটাগুড়ি গ্রামে চলে যান। সেখানেই বিয়ে করে সংসার পাতেন তিনি। নিশীথ তাঁদের একমাত্র সন্তান। লেখাপড়া শেষে নিশীথ শিক্ষকতার চাকরি নেন। পরে চাকরি ছেড়ে

তৃণমূল কংগ্রেসের রাজনীতিতে নাম লেখান। এক সময় তৃণমূলের কোচবিহার জেলার যুব সেক্রেটারি হন। পরে বিজেপিতে যোগ দেন। ২০২১ সালে বিধানসভার ভোটে এমএলএ নির্বাচিত হন। নিশীথের মন্ত্রী হওয়ার সংবাদ এবং তার পৈতৃক বাড়ি গাইবান্ধায়- এ খবর সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে গ্রামের মানুষজন তাঁদের বাড়িতে আসতে থাকেন।

তাই সবাইকে শুভ সংবাদে মিষ্টিমুখ করানো হয়েছে বলে জানান নিশীথের জ্যাঠাতো ভাই সঞ্জিত প্রামাণিক। তিনি আরও জানান, ইতিপূর্বে কয়েকবারসহ সবশেষ ২০১৮ সালে বাংলাদেশে এসেছিলেন নিশীথ। সে সময় ঢাকা এবং ভেলাকোপার বাড়ি ঘুরে যান তিনি। পলাশবাড়ীর হরিনাথপুর ইউপি চেয়ারম্যান রুহুল আমিন বলেন, প্রামাণিকবাড়ির লোকজন এলাকায় সজ্জন হিসেবে পরিচিত। নিশীথ মিশুক এবং মেধাবী। আমরা এলাকাবাসী তাঁর এই অর্জনে আনন্দিত।

গুরুত্বপূর্ণ সব সংবাদ  পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।
https://www.facebook.com/BangaliTimesofficel

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 Bangalitimes.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com