নন্দনকানন বললে আমাদের মাথায় কি এমন কিছু ছবি আসে??

নন্দনকানন বললে আমাদের মাথায় কি এমন কিছু ছবি আসে??
চারদিকে সহস্র জ্বলজ্বলে টিউলিপ ফুলগুলো যখন প্রথমবার দেখলাম শুধু মনে হলো কি অপরূপ সৃষ্টি!! এ যেন সত্যিই এক ফুলের স্বর্গরাজ্য। আর এই স্বর্গরাজ্যে প্রবেশ করতে আপনাকে কোন প্রবেশমূল্য দিতে হবেনা। এমনকি গাড়ি পার্কিংও ফ্রি। শুধু যাবেন আর চক্ষু মুদিয়া দেখবেন।

টিউলিপের এ বাগানটি মূলত একটা Agricultural Park এর অংশ, যেটা জাপানের চিবা প্রিফেকচারের একটি গ্রামে অবস্থিত। পার্কটির একটা অংশে রয়েছে এই বিশাল টিউলিপ ফুলের বাগান, এছাড়া আরো অনেক কিছু আছে পার্কের অন্যান্য অংশে। সারা বছরই ঋতুভেদে বিভিন্ন ফুলের সমারোহ থাকে এই পার্কটিতে তবে বসন্তের প্রধান আকর্ষণ টিউপিল বাগান। এখানে ছয় রকমের টিউলিপ আছে আর গাছগুলো খুব সুন্দর প্লান করে সারিবদ্ধভাবে লাগানো হয়েছে। কোথাও লম্বা সারি কোথাও গোল সারি দিয়ে একটা আলাদা বৈচিত্র্য আনা হয়েছে যেটা দূরের ভিউ পয়েন্ট থেকে যখন দেখা হয় তখন অভূতপূর্ব লাগে। পাশে পাহাড়ের উপরে ধাপে ধাপে কয়েকটা ভিউ পয়েন্ট আছে। সেখান থেকে পুরো বাগানটা খুব সুন্দর দেখা যায়। দূর থেকে মনে হয় ফুলের গালিচা, সবাইকে এর সৌন্দর্যে বিমোহিত করতেই যেন সারি বেধে দাঁড়িয়ে আছে। প্রতিটা সারির মাঝখানে ফাঁকা রাখা হয়েছে তাই চাইলে ভিতরে গিয়ে কাছ থেকে দেখা যাবে আর ছবিও তোলা যাবে কিন্তু ফুলের কোন ক্ষতি হবেনা।

বাগানটা নেদারল্যান্ডের টিউলিপ বাগানগুলোর আদলে করা হয়েছে তাই বাগানের সাথেই একটা উইন্ডমিল বানানো হয়েছে যা জায়গাটাকে আরো আকর্ষণীয় করে তুলেছে। সব মিলিয়ে যে কারো হারিয়ে যেতে মন চাইবে এই ফুলের রাজ্যে।
পরিশেষে একটা কথা, আপনি কি ঘুরতে পছন্দ করেন? সুন্দর-পরিচ্ছন্ন জায়গা দেখতে ভালো লাগে? তবে নিজেও পরিচ্ছন্নতার পরিচয় রেখে আসুন সব জায়গায়। এই দেশ আপনার-আমার-আমাদের, দেশের পরিবেশ সুন্দর থাকলে আমরাই উপকৃত হব। যদি সবাই সচেতন হই, পেতে পারি একটা পরিচ্ছন্ন সুন্দর দেশ। কারন আমি বিশ্বাস করি যারা দেশ ও প্রকৃতিকে সত্যিকার অর্থে ভালোবাসে তারা কখনো পরিবেশ নোংরা করতে পারেনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Next Post

যেখানে পথ চলতে হয় শত বছরের কবর পাড়িয়ে

Wed Apr 14 , 2021
প্রায় ৪০০ বছরের গৌরব এবং সমৃদ্ধের ইতিহাস নিয়ে ঢাকা শহরের বেড়ে ওঠা। আর তারি জানান দেয় পুরান ঢাকা মিড ফোর্ট ও আরমানিটোলার মাঝে চার্চ রোডে অবস্থিত আরমেনিয়ান চার্চ টি। বিঃদ্রঃ স্থানটি একটি কবর স্থান, কোন ঘুরার স্থান নয় তাই অধিকাংশ সময়েই সেখানে প্রবেশ করতে দেয়া হয় না তাই যাবার আগেই […]